স্কুলে অনুপস্থিতির ফি ছাড়া মিলছে না পরীক্ষার প্রবেশপত্র

বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ ১৫:৫৫


মীর্জা অপু, পাবনা ::
পাবনার বেড়া উপজেলার মাশুন্দিয়া-ভবানীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ক্লাসে অনুপস্থিতির জন্য শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জরিমানা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে শিক্ষার্থী অভিবাবক মহলে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।

প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক খান অভিযোগের বিষয়ে জানান,বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সদস্যদের সাথে আলোচনা করেই  ছাত্র/ছাত্রীদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করতে জরিমানার টাকা ধার্য করা হয়েছে ।

অন্যদিকে বেড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বলেছেন।নিয়ম বিধি লঙ্ঘন করে এ ভাবে টাকা আদায় অনৈতিক।কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে এভাবে টাকা আদায়ের কোন নিয়ম নেই।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে জানান,বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একজন শিক্ষার্থীকে একদিন অনুপস্থিতির জন্য প্রতিদিন ২০টাকা হারে জরিমানা আদায় করছেন।এ ভাবে গত সাত মাস ধরে ছাত্র/ছাত্রীদের কাছ থেকে অর্ধলক্ষাধিক টাকা আদায় করা হয়েছে বলে শিক্ষার্থীরা দাবি করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন অভিবাবক বলেন,বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সদস্য ও প্রধান শিক্ষক প্রভাবশালী হওয়ায় তাঁরা এ অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করার সাহস পাননি।

বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী  মুহিন একই শ্রেণীর শিক্ষার্থী  তুষার, সপ্তম শ্রেণীর শিক্ষার্থী মেহেদী জানান,তাদের বিদ্যালয়ের অনুপস্থিতির তালিকা করে রেখেছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

শিক্ষার্থীদের বক্তব্য যে সমস্ত শিক্ষার্থী একদিন  বা দুইদিন জরিমানা খেয়েছেন তারা ২০ টাকা হারে টাকা দিয়েছেন। কিন্ত যে সমস্ত শিক্ষার্থীর ১৫ থেকে ২৫ দিন অনুপস্থিত ছিলেন সেই সমস্ত শিক্ষার্থীদের মাসিক বেতন,অন্যান্য ফি, অর্ধবাষিক পরিক্ষার ফির সাথে জরিমানার টাকা যুক্ত করে আদায় করা হচ্ছে।

এ নিয়ে প্রতিনিয়ত শিক্ষার্থী অভিবাবক ও শিক্ষকদের মধ্যে  অপ্রীতিকর অবস্থা সৃস্টি হচ্ছে। জরিমানার টাকা পরিশোধ করা না হলে মিলছে না অর্ধ বার্ষিক পরিক্ষার প্রবেশপত্র।

এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মোঃ আফজাল হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,তিনি সদ্য সভাপতি নিযুক্ত হয়েছেন।

জরিমানা আদায়ের সিদ্ধান্তটি পূর্বের  কমিটি দিয়েছেন। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করতে তাঁরা এটি করেছেন বলে প্রধান শিক্ষক তাকে বলেছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক খান বলেছেন,বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি বাড়াতে পরিচালনা পরিষদের সিদ্ধান্তে হয়েছে। যে সকল শিক্ষার্থী শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে বিনা আবেদনে অনুপস্থিত থেকেছেন কেবল তাদেরকেই জরিমানা করা হয়েছে। 

বেড়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. খবির উদ্দিন বলেন ,এমন একটি অভিযোগের কথা তিনি শুনেছেন।

প্রাথমিক ভাবে প্রধান শিক্ষক জরিমানা আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে আলোচনা করেছি।তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। 

এমএসি/আরএইচ