আকবর স্যার বেঁচে থাকলে সবচেয়ে খুশি হতেন: সাবিনা

শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৫:০৩


এস এম হাবিবুল হাসান : 
একযুগ ধরে ফুটবলের পিছনে সময় দিয়েছে, যার জন্য সাফল্য এসেছে। আকবর স্যারের কারণে আজ আমি সাবিনা হতে পেরেছি। তিনি বেঁচে থাকলে আমাদের এই বিজয়ে সবচেয়ে খুশি হতেন। আমার বাবাও খুব খুশি হতেন। নিজ জেলার মানুষ আমাকে এভাবে বরণ করে নেবে সেটা কখন স্বপ্নেও ভাবতে পারিনি। আজকে জেলাবাসী আমাকে যে অভিবাদন জানিয়েছেন এবং  সম্মাননা দেখিয়েছেন সেজন্য সবার কাছে আমি অনেক অনেক কৃতজ্ঞ। সব সময় চেষ্টা করবো মানুষের এই হাসি মুখটা দেখরার জন্য। আগামীতে নিজের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করবো। আমার ক্যারিয়ার এগিয়ে নিতে সকলের দোয় চাই। 
সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীফ দলের অধিনায়ক গোলমেশিন খ্যাত সাবিনা খাতুনকে নিজ জেলায় ফিরে সংবর্ধনা পেয়ে সাতক্ষীরা বাসীর উদ্দেশ্য তিনি এসব কথা বলেন। 
তিনি আরও বলেন, মাঠে নামার আগে দেশের মানুষ যেভাবে আমাদের ফেইসবুকেসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাপোর্ট করেছে তাতে আমাদেরকে ভালো খেলতে আরও বেশি উজ্জীবিত করেছে। তারা আমাকে সাপোর্ট করেছেন পুরো টিমটাকে সাপোর্ট করেছে। 
সাফ চ্যাম্পিয়নশীপ জয়ের পর নিজ জেলা সাতক্ষীরায় প্রথম আসায় সর্বস্তরে বইছে উৎসবের আমেজ।
সাতক্ষীরায় সাবিনা খাতুনকে উষ্ণ সংবর্ধনা, সেরা খেলোয়াড়ের ট্রপি ও সেরা গোলদাতার গোল্ডেন বুট হাতে  নিয়ে সোনালী রঙের রোদ চশমা ও সাদা রঙের জার্সি পরে ছাদখোলা পিকআপে করে চিরচেনা শহরে ভ্রমণ করে।
শুক্রবার বেলা ১১ টায় সাতক্ষীরা সার্কিট হাউজ মোড়ে গোল্ডেন গার্লস গোলমেশিন খ্যাত জাতীয় নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুনকে সাতক্ষীরায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়। নিজ হাতে প্রতিষ্ঠিত  ওরিয়র স্পোর্টস একাডেমিসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। 
পরে সাতক্ষীরা ক্রীড়া সংস্থার লাল-সবুজের জাতীয় পতাকা বেষ্টীত একটি ছাদখোলা পিকআপে চড়ে গোল্ডেন বুট ও ট্রপি হাতে উচিয়ে শহরব্যাপী ঘুরে বেড়ান তিনি। 
এসময় হাত নেড়ে তাকে বরণ করে নেন জেলাবাসি। 
এর আগে সবুজবাগের বাড়িতে বসে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ভবিষ্যত পরিকল্পনা তুলে ধরেন তিনি। 
শুক্রবার ভোরে ঢাকা থেকে সাতক্ষীরার সবুজবাগের বাড়িতে আসেন সাবিনা খাতুন। পরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে সাবিনা খাতুন জানান, পশ্চাদপদ সমাজে একজন মেয়েকে খেলোয়াড়ী জীবনে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার জন্য প্রচুর সংগ্রাম করতে হয়। আমাকেও তাই করতে হয়েছে। মেয়েরা ফুটবল খেলবে, এমনটা নিজের পরিবারেরও কেউ মেনে নেননা। তবুও অদম্য মনোবল ও 
স্থানীয় কোচ প্রয়াত আকবার আলীর উৎসাহে তিনি আজ এ পর্যায়ে এসেছেন। আজ বিজয়ী হয়ে নিজ জেলায় ফিরে খুবই ভালো লাগছে। জেলার মানুষ আমাকে সাদরে অভিবাদন জানিয়েছেন তাতে আমি খুবই খুশি।
তিনি আরও বলেন, আমার বাবা এবং আমার পরিবার আমাকে খুবই 
সাপোর্ট করেছে। কখনও প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হয়নি। জেলায় প্রাকটিসের জন্য পর্যাপ্ত মাঠ নেই। সেজন্য প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে ভালো কোন খেলোয়ার উঠে আসতে পারছেন না। জেলা স্টেডিয়ামেও সারাবছর বিভিন্ন খেলা লেগে থাকে। ফুটবল খেলাকে এখন মেয়েরা পেশা হিসেবে নিচ্ছে। মেয়ের এগিয়ে আসলে ফুটবল খেলা আরও এগিয়ে যাবে। আমাদের বিজয় দেশের মানুষের জন্য উৎসর্গ করলাম। 
সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়ের নাসিমাবাদ গ্রামে বিত্তহীন পরিবারে ১৯৯৩ সালে জন্মগ্রহণ করেন কৃতি এই ফুটবলার। ২০০৭ সালে অষ্টম শ্রেণিতে পড়াকালীন ফুটবলে পা রেখেছিলেন। ২০০৯ সালেই 
জাতীয় দলে সুযোগ পান তিনি। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। খেলোয়াড়ী জীবনের শুরুটায় পিতার মত সঙ্গে থেকেছেন শহরের চালতেতলার আকবার আলী। শহরের চালতেতলা এলাকায় ২০০২ সালে 'জ্যোতি ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান' নামের একটি আবাসিক সংগঠন গড়ে তোলেন তিনি। সাবিনার হাতে খড়ি সেই প্রতিষ্ঠান থেকে। 
জ্যোতি ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সহ-সংগঠক ও আকবার আলীর স্ত্রী রেহেনা আক্তার জানান, আমার স্বামী বেঁচে থাকলে কী যে খুশি হতেন। সাবিনা ও মাসুরারা আমার স্বামীর মুখ উজ্জল করেছে। সাবিনা তখন শহরের নবারুণ গার্লস হাই স্কুলে ৮ম শ্রেণিতে পড়ে। আন্ত:স্কুল প্রতিযোগিতায় তার খেলা নজর কাড়ে আকবার আলীর। তিনি সাবিনাকে পিটিআই স্কুল মাঠে ফুটবল খেলায় প্রশিক্ষণ দিতে থাকেন। সেই থেকে উঠে এসেছে আজকের এই সাবিনা খাতুন।
আরিফুজ্জামান আপন নামে একজন বলেন, সাবিনা সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছে। সে আমাদের গর্ব, আমাদের অহংঙ্কার। তার কারণে জেলার নাম জেলার ফুটবল ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টর উজ্জিবিত হবে।
জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি আশরাফুজ্জামান আশু বলেন, ফুটবলকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে সাবিনাদের মতো খেলেয়াড়দের পাশে দাড়াতে হবে। তাহলে জেলার ক্রীড়া আরও এগিয়ে যাবে।
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির জানান, শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২ টায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সাবিনা 
খাতুনকে সংবর্ধণা দেওয়া হবে। মাসুরা পারভীন এখনো বাড়িতে 
আসেননি। তাদের দুজনকে একসাথে জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে বড় আয়োজনে আগামীতে সময় করে সংবর্ধণা দেওয়া হবে।

এমএসি/আরএইচ

সর্বশেষ

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য হলেন কলাপাড়ার তরিকুল মৃধা 

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য হলেন কলাপাড়ার তরিকুল মৃধা 

ছেলে পাস করার দুই বছর পর এসএসসি পাস করলেন পৌর কাউন্সিল বাবা

ছেলে পাস করার দুই বছর পর এসএসসি পাস করলেন পৌর কাউন্সিল বাবা

 তাড়াশে ৫২ বছর বয়সে এসএসসিতে কৃতকার্য কৃষক আব্দুল মতিন

 তাড়াশে ৫২ বছর বয়সে এসএসসিতে কৃতকার্য কৃষক আব্দুল মতিন

মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্য ও ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ

মাদ্রাসা সুপারের বিরুদ্ধে নিয়োগ বাণিজ্য ও ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ

কুমিল্লায় পাঁচ ইউপি নির্বাচনে ইভিএমে ভোট দিয়ে সন্তুষ্ট ভোটাররা

কুমিল্লায় পাঁচ ইউপি নির্বাচনে ইভিএমে ভোট দিয়ে সন্তুষ্ট ভোটাররা

নেইমারের ফিজিওথেরাপি চলছে, যেকোন সময় ফিরবেন বিশ্বকাপ মাঠে

নেইমারের ফিজিওথেরাপি চলছে, যেকোন সময় ফিরবেন বিশ্বকাপ মাঠে

বাঘাবাড়ি নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

বাঘাবাড়ি নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কে বাস শ্রমিকদের কাছে জিম্মি যাত্রীরা

বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কে বাস শ্রমিকদের কাছে জিম্মি যাত্রীরা

জানাযায় শরীক হতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় বীরগঞ্জের ইব্রাহীম নিহত

জানাযায় শরীক হতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় বীরগঞ্জের ইব্রাহীম নিহত

সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালকের মৃৃত্যু

সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল চালকের মৃৃত্যু